খেলা

ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ হেড টু হেড [ ম্যাচ সংখ্যা, জয়, গোল]

ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ হেড টু হেড। ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ দুটোই খুবই শক্তিশালী ফুটবল দল। এবারের ফুটবল বিশ্বকাপ এর গ্রুপ বি তে রয়েছে ইংল্যান্ড, ইরান, আমেরিকা (ইউএসএ) এবং ওয়েলস। আজকে আমরা ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ ফুটবল হেড টু হেড আলোচনা করব।

ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে খেলা খেলা প্রেমীদের ইতিমধ্যে আগ্রহের শেষ নেই। প্রতিটি বিশ্বকাপে যে সকল টিমগুলো ফুটবল বিশ্বকাপের জন্য কোয়ালিফাই করে তাদের কে নিয়ে থাকে অনেক বেশি উৎসাহ। ফুটবল বিশ্বকাপ বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়া আসর গুলোর মধ্যে একটি। এবছর কাতারে ২০ নভেম্বর হতে শুরু হওয়া ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে অনেকেই এক্সাইটেড। কাতার বিশ্বকাপে সবগুলো টিমের হেড টু হেড আমরা এখানে প্রকাশ করেছি।

ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ হেড টু হেড 

এই কম্পারিজন থেকে জানা যাবে কোন টিম গুলো পূর্ববর্তী বছরগুলোতে একে অপরের সাথে জিতে এসেছে এবং কে কার সাথে কত টি ম্যাচ জিতেছে। এছাড়া সবচেয়ে বড় জয় কোনটি এবং সবচেয়ে বড় হার কোনটি এগুলো আমরা আলোচনা করব। তাই আপনি যদি ফুটবল ফ্যান হয়ে থাকেন এবং ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ হেড টু হেড জানতে চান তাহলে নিচের অংশটি দেখুন।

ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ দুটোই খুবই শক্তিশালী ফুটবল দল। ইংল্যান্ড এবং ইউএস এ মোট ১১ বার ইন্টারন্যাশনাল ফুটবলে মুখোমুখি হয়েছে। এর মধ্যে ইংল্যান্ড জয়লাভ করেছে আটটি ম্যাচে এবং আমেরিকা জয় লাভ করেছে দুইটি ম্যাচে। অপর একটি ম্যাচ ড্র হয়েছে।

ইংল্যান্ড বনাম আমেরিকা হেড টু হেড

ইংল্যান্ড এবং আমেরিকা প্রথমবার মুখোমুখি হয় ১৯৫০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপে। সে বছর ১৯ জুন এ দুটি দল মুখোমুখি হয়। সেই ম্যাচে ইউএসএ ইংল্যান্ডকে এক শূন্য গোলে হারায় । এর পরের বার ১৯৫৩ সালে তারা আবারও মুখোমুখি হয় এবং সেখানে ইংল্যান্ড জয়লাভ করে। ১৯৫৯ সালের ২৮ শে মে ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডলি ম্যাচে ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ খেলা অনুষ্ঠিত হয় এবং সে খেলায় ইংল্যান্ড ৮-১ গোলের বিশাল জয়লাভ করে। তবে এটি ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বড় জয় নয়।

১৯৬৪ সালের ২৭ শে মে আরেকটি ফুটবল ইন্টারন্যাশনালে তারা মুখোমুখি হয় এবং সেই ম্যাচে ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ এর মধ্যকার সবচেয়ে বড় ফলাফল ফুটবল বিশ্ব দেখে। সে ম্যাচে ইংল্যান্ড ১০-০ গলে জয়লাভ করে। এরপরে ১৯৮৫ সালে আরেকটি ম্যাচ হয় সেটি হয়েছিল ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডলি এবং সে ম্যাচে ইংল্যান্ড ৫-০ গলে জয়লাভ করে। পরবর্তীতে ১৯৯৩ সালের ৯ জুন তারিখে ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ এর মধ্যকার ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। এটি ছিল ইউএস কাপ কম্পিটিশন। সে ম্যাচে ইউএসএ ইংল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারিয়ে দেয়। এরপরে ১৯৯৪, ২০০৫ এবং ২০০৮ সালে আরও তিনটি ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডলিতে তারা মুখোমুখি হয় এবং প্রত্যেকটি ম্যাচেই ইংল্যান্ড জয়লাভ করে।

১৯৯৪ সালের ম্যাচে ইংল্যান্ড ২-০ গোল এ জয়লাভ করে। ২০০৫ সালের ম্যাচে ২-১ এবং ২০০৮ সালের ম্যাচে ২-০ গলে জয়লাভ করে। ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ ফিফা বিশ্বকাপে মোট দুইবার মুখোমুখি হয়েছে। দ্বিতীয়বার হল ২০১০ সালের ১২ই জুন অনুষ্ঠিত হওয়া ফিফা বিশ্বকাপে। এই ম্যাচে অবশ্য কোন দলই জিততে পারেনি। ১-১ গোলে ড্র হয় ম্যাচটি । ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ সর্বশেষ হেড টু হেড ম্যাচ খেলেছে 2018 সালের 15 নভেম্বর ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডলি তে। এই ম্যাচে ইংল্যান্ড ৩-০ গোলে জয়লাভ করে।

Date Match Score Competition
29 Jun 1950 USA v England 1-0 FIFA World Cup
08 Jun 1953 USA v England 3-6 International Friendly
28 May 1959 USA v England 1-8 International Friendly
27 May 1964 USA v England 0-10 International Friendly
16 Jun 1985 USA v England 0-5 International Friendly
09 Jun 1993 USA v England 2-0 US Cup
07 Sep 1994 England v USA 2-0 International Friendly
28 May 2005 USA v England 1-2 International Friendly
28 May 2008 England v USA 2-0 International Friendly
12 Jun 2010 England v USA 1-1 FIFA World Cup
15 Nov 2018 England v USA 3-0 International Friendly

ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ এর মধ্যে ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডলি অনুষ্ঠিত হয়েছে মোট আটবার যার সবগুলোতেই ইংল্যান্ড জয়লাভ করেছে। তবে ফিফা বিশ্বকাপে কিন্তু ইউএসএ এর জয়ের পাল্লা ভারী। দুবার ফুটবল বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয়েছে এই দুটি দল যার মধ্যে একবার ইউএসএ জিতেছে এবং অপর ম্যাচ ড্র হয়েছে। এছাড়া ইউএস-কাপ ম্যাচেও ইউএসএ জয় পেয়েছিল।
ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ এর মধ্যকার ম্যাচগুলো দেখলে বোঝা যায় ইংল্যান্ড প্রতিবারই ডমিনেট করে ম্যাচগুলো জিতেছে। বেশিরভাগ বড় জয় গুলো পেয়েছে ইংল্যান্ড এবং তাদের সবচেয়ে বড় জয় ছিল ১০-০ বলে যেটি ২৭ই মে ১৯৬৪ সালে অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া ৮-১ গোলের আরেকটি বড় ম্যাচ ফুটবল বিশ্ব উপভোগ করেছে।

এবারে ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ এ দুটি দল গ্রুপ বি থেকে একে অপরের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে। ২৬ নভেম্বর ২০২২ তারিখে ইংল্যান্ড এবং ইউএসএ’র মধ্যকার খেলা অনুষ্ঠিত হবে। যদিও পূর্ববর্তী ম্যাচগুলোতে ইংল্যান্ড বেশি ম্যাচ জিতেছে কিন্তু যদি বিশ্বকাপের কম্পিটিশন দেখা যায় সেক্ষেত্রে ইউএসএ ইংল্যান্ডের চেয়ে এগিয়ে আছে। তাই বলা যায় আরেকটি দারুন ম্যাচ উপভোগ করতে চলেছে ফুটবল বিশ্ব। 

শেষ কথা

আশা করছি ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ হেড টু হেড সম্পর্কে আপনি জানতে পেরেছেন। ইংল্যান্ড বনাম ইউএসএ হেড টু হেড সম্পর্কে যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে এখানে প্রশ্ন করুন। এই নিবন্ধের কোনো অংশ বুঝতে না পারলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন, Result Insider BD টিম আপনার সমস্যার সমাধান করতে সবসময় চেষ্টা করে। এ বিষয়ে আরো তথ্য জানতে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন ও ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথেই থাকুন। সম্পূর্ণ আর্টিকেল পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

আরো দেখুনঃ  কিভাবে ULC গ্রুপ স্টেজ লাইভ ড্র ২০২২-২৩ দেখা যাবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button